চালের মূল্য নিয়ন্ত্রণ জরুরী

প্রথমে হাওরে অকালবন্যা, এরপর অতিবৃষ্টি ও ব্লাস্ট রোগে বোরোর ফলন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অবধারিতভাবেই এর প্রভাব পড়ে দেশের চালের বাজারে। সব ধরনের চালের দাম বেড়ে যায়। বিশেষ করে নিম্ন আয়ের মানুষের মোটা চালের দাম চলে যায় তাদের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে। সরকারের মজুদে টান পড়ায় দেখা দেয় বড় ধরনের সংকট। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সিদ্ধান্ত নিতেও সরকার খুব একটা বিলম্ব করেনি। দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। চালের আমদানি শুল্ক ২৮ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ করার পাশাপাশি শূন্য মার্জিনে ঋণপত্র খোলার সুযোগ দেওয়া হয়। সরকারও জিটুজি পদ্ধতিতে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়। ব্যবসায়ীদের চাল এরই মধ্যে দেশের পাইকারি বাজারে পৌঁছে গেছে। সরকারের আমদানি করা চালের প্রথম চালানও চট্টগ্রাম বন্দরে চলে এসেছে। ১৮ জুলাই দ্বিতীয় ও ২২ জুলাই তৃতীয় চালান এসে পৌঁছবে। কিন্তু বাজারে এর কোনো প্রভাব নেই বললেই চলে। পাইকারি বাজারে চালের দাম কিছুটা কমলেও খোলাবাজারে চালের দাম একেবারেই কমেনি। আসেনি সীমিত আয়ের মানুষের ক্রয়ক্ষমতার নাগালে।
বলা হয়ে থাকে, বাংলাদেশের বাজারে একটি অদৃশ্য সিন্ডিকেট সব সময় সক্রিয়। পণ্যমূল্য ওঠানামায় এই সিন্ডিকেটের হাত থাকে। দাম বাড়ানোর ক্ষেত্রেও থাকে নানা অজুহাত। এ ছাড়া এখানে কোনো পণ্যের দাম একবার বেড়ে গেলে সহজে তা কমানো যায় না। চালের ক্ষেত্রেও তেমনটি হয়েছে বলে ধারণা করা যেতে পারে। আবার এক শ্রেণির মিল মালিক চাল মজুদ করে থাকতে পারে এমন ধারণাও করা হচ্ছে। সরকারের গুদামে চাল বিক্রির কথা থাকলেও অনেক মিল মালিক তা করেনি। এমন ১৬ হাজার মিলারের তালিকা এখন সরকারের হাতে। অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। তবে সবার আগে বাজার নিয়ন্ত্রণে উদ্যোগী হতে হবে। টিসিবিকে সক্রিয় করে খোলাবাজারে সীমিত আয়ের মানুষের কাছে নিয়মিত চাল বিক্রির উদ্যোগ এখনই নেওয়া গেলে সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম্য কমানো সম্ভব হবে বলে ধারণা করা যায়। সরকারের বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা সব সময় দুর্বল বলে অভিযোগ আছে। মনিটরিংয়ের অভাবেও অনেক সময় বাজার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। কাজেই এদিকেও সরকারকে দৃষ্টি দিতে হবে। সর্বোপরি আমদানি করে হলেও সরকারের মজুদ বাড়াতে হবে। হাওরের বন্যার পর সরকারের মজুদ থেকে চাল বাজারজাত করলে কোনো ব্যবসায়ী দাম বাড়ানোর সুযোগ পেত না। আমরা আশা করব, চালের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার সম্ভাব্য সব ব্যবস্থা নেবে।