ছাতকে ৫ দিনে সংঘর্ষসহ বিভিন্ন ঘটনায় ৬ জনের মৃত্যু

ছাতক থেকে সংবাদদাতা :
ছাতকে গত পাঁচ দিনে সংঘর্ষ, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট ও গুপ্ত হত্যাসহ ভিন্ন ঘটনায় ৬ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার ঘটে ৪ জনের মৃত্যু। মৃত ৬ জনের মধ্যে ৩ জনের বাড়িই জাউয়া এলাকায়। সোমবার বিকেলে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র নোয়ারাই ইউনিয়নের বড়গল¬া ও উলুরগাঁও গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় লোকমান আহমদ (২৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত ও আহত হয় আরো ২৫ ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার জাউয়া বাজারে অপর এক সংঘর্ষে হাফেজ আবু সাইদ (২৫) নামের এক যুবক নিহত হয়। ভূমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে জাউয়া-কোনাপাড়া ও হাবিদপুর গ্রামবাসীদের সংঘর্ষে সে নিহত হয়। আবু সাইদ হাবিদপুর গ্রামের আব্দুল কাইয়ুমের পুত্র। আহত হয় আরো ৩৫ জন। সংঘর্ষ ও হতাহতের খবর শুনে একই সময়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় সুলতান মিয়া (৫৫) নামের এক বৃদ্ধ। সে বিনন্দপুর গ্রামের মৃত ওছিয়ত উল্লাহর পুত্র। বৃহস্পতিবার রাতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে হুমায়ূন কবির (৩১) ও মামুন আহমদ (২২) নামের নির্মাণ শ্রমিক দু’সহোদরের। রাতে বল্লভপুর গ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য সিরাজ মিয়ার বাড়িতে গৃহ নির্মাণের কাজ করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায়। এদিকে সোমবার ফেঞ্চুগঞ্জ রেল ষ্টেশনের পাশ থেকে মুন্তাহিন রাজ্জাক মামুন (২৫) নামের এক শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে জিআরপি পুলিশ। সে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের ছাত্র। মুন্তাহিন রাজ্জাক মামুন ছাতক উপজেলার জাউয়া এলাকার বাসিন্দা এবং নর্থ-ইষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যাপক ডাঃ আব্দুর রাজ্জাক ও ডাঃ হুসনে আরার পুত্র।